Chittagong Tribune

Neutral coverage and incisive analysis.

বিপিএল নিয়ে নতুন পরিকল্পনা সাজাচ্ছে বিসিবি

Spread the love
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

ছবিঃ সংগৃহীত

আবারো আলোচনায় স্থগিত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বিপিএলের ৮ম আসর। ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক এই টুর্নামেন্টটি আয়োজনে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে বিসিবি। জানিয়েছেন বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। তবে সেক্ষেত্রে কোভিডকালে ভেন্যু আর আবাসন সংকটকে বড় সমস্যা মনে করছেন তিনি।

অথচ ২০২০ সালটা হতে পারতো দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের জন্য-ও ব্যস্ততার বছর। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক বছরে মাঠে গড়ানোর কথা ছিলো দুই বিপিএল। কিন্তু কোভিড পরিস্থিতি বাধ্য করেছে বিপিএলের পরিবর্তে কর্পোরেট লিগ আয়োজনে। তাহলে ভবিষ্যত কি হচ্ছে ফ্রাঞ্জাইজিক ভিত্তিক এই আসরের।

সবশেষ খবর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে আবারো নতুন করে পরিকল্পনা সাজাচ্ছে বিসিবি। দফায় দফায় হচ্ছে আলোচনা, সিদ্ধান্ত আসতে পারে কর্পোরেট লিগ শেষে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘বিপিএল শুরু করার জন্য আমরাও খুব উন্মুখ হয়ে আছি। আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের অনেক সদইচ্ছা আছে, বিসিবির অনেক সদইচ্ছা আছে। আমাদেরকে বলা হয়েছে যে তোমরা কাজ করো দেখো কতদূর কি করতে পারো। আমরা চাচ্ছি যত শিগরই পারি চেষ্টা করছি।’

তাইতো সব বাঁধা জয় করে শেষ পর্যন্ত করোনাকালে বিপিএল আয়োজিত হলেও থাকবে ভেন্যু, আবাসন, বায়োবাবল প্রক্রিয়া সহ বেশ কিছু জটিলতা। বোর্ড পরিচালক সুজন বলছেন, এ নিয়েও সাজানো হচ্ছে ভিন্ন পরিকল্পনা।

খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘আমরা এই টুর্নামেন্টটা সোনারগাঁও হোটেলে রেখে করতে পারছি বা আমরা টি-টুয়েন্টি সোনারগাঁও হোটেলে রেখে করতে পারবো। কিন্তু ক্লাব ক্রিকেট তো আর আমরা সোনারগাঁও হোটেলে রাখতে পারবো না, বায়োবাবল এভাবে আমরা সরাসরি করতে পারবো না। সেটা যেন আমরা সরাসরি না করতে পারি, তাহলে কোথায় করবো, কিভাবে করবো সেটার পরিকল্পনা করে, আমাদের মেডিকেল টিম আছে, সব আছে বিসিবির তারা একটা প্লানিং করে হয়তো বসবে। পরিস্থিতি এমন যে আমরা ২৪০ টা ছেলেকে কোথায় নিয়ে রাখবো এটা আমাদের জন্য বিরাট একটা চ্যালেঞ্জ। আমাদেরকে সবকিছু মাথায় রেখে প্লান করতে হচ্ছে, চেষ্টা করছি যে কিভাবে আমরা এটা করতে পারি।’

এদিকে, চলমান প্রেসিডেন্টস কাপে অভিজ্ঞদের টপকে ঔজ্জ্বল্য ছড়াচ্ছেন উদীয়মানরা। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবেই নিচ্ছেন সুজন। বোলারদের ভাসাচ্ছেন প্রশংসার বাণে।

তিনি বলেন, ‘বোলাররা উইকেট এডভ্যান্স নিয়ে ভালো বল করছে এটা মানতেই হবে। তো এখন মনে হচ্ছে ব্যাটসম্যানরা আস্তে আস্তে ধরতে পারছে, ভালো খেলতেছে। তারপরও আমরা ওরকম বড় ইনিংস দেখি নাই যেটা আমরা আশা করি ২৮০ কিংবা ৩০০ রান হবে। আপনারা যদি দেখেন তিনটা টিম ব্যালেন্স আছে। এমন না যে তারা খারাপ খেলছে। কিন্তু টপ অর্ডাররা এখনো বড় রান করতে পারেনি।’

আর ক্রিকেটাররা তাদের ফর্ম ধরে রাখতে পারলে জানুয়ারিতে ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে সিরিজটা প্রতিদ্বন্দ্বতাপূর্ণ হবে বলেও মনে করেন বিসিবির এই পরিচালক।


Spread the love
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares
  • 3
    Shares
বাংলা » English