Chittagong Tribune

Neutral coverage and incisive analysis.

করোনা ভ্যাকসিন হবে সবার জন্য উন্মুক্ত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ছবিঃ সংগৃহীত

করোনা মোকাবিলায় সবার জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে উন্নয়নশীল দেশগুলো বাণিজ্যবিষয়ক মেধাস্বত্ব আইনের (ট্রিপস-চুক্তি) অধীনে মেধাস্বত্ব অধিকারের (আইপি-রাইটস) ছাড় পাবে। আর এই ছাড় নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের এক হয়ে কাজ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

রোববার (০৬ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজে ‘করোনা-১৯ পরবর্তী বৈশ্বিক স্থিতিশীলতা, সুরক্ষা এবং সমৃদ্ধি’-শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে অনলাইনে যুক্ত হন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন।

সেমিনারে সমাপনী বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, দেশের সব শ্রেণিপেশার জনগণকে সঙ্গে নিয়ে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার বদ্ধপরিকর। এসময় মন্ত্রী আন্তর্জাতিকভাবে উৎপাদিত করোনার ভ্যাকসিন সবার জন্য নিশ্চিত করতে বিশ্ব সম্প্রদায়কে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। 

মন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন হবে সব মানুষের জন্য উন্মুক্ত। বাণিজ্য বিষয়ক মেধাস্বত্ব আইনের (ট্রিপস-চুক্তি) অধীনে সব উন্নয়নশীল দেশকে ভ্যাকসিন তৈরীর প্রযুক্তি এবং মেধাস্বত্ব অধিকারের (আইপি রাইটস) ছাড় দিতে হবে।

তিনি বলেন, বাঙালি জাতি অদম্য শক্তি এবং বীরত্বপূর্ণ সহিষ্ণুতার সাথে সব প্রতিবন্ধকতা এবং দুর্যোগ মোকাবিলা করেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের শিখিয়েছেন কিভাবে প্রতিবন্ধকতা ও কঠিন সময় শক্ত হাতে মোকাবিলা করতে হয়। তার অদম্য নেতৃত্বে আমরা পাকিস্তানি অপশাসনকে প্রতিহত করতে সক্ষম হয়েছি। তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা বৈশ্বিক ও মহামারি প্রতিহত করতে বদ্ধপরিকর। 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের সব দেশের সাথে মিল রেখে আন্তর্জাতিক সহযোগিতায় বৈশ্বিক এই দুর্যোগ মোকাবিলা করতে হবে। এজন্য আমাদের প্রয়োজন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দৃঢ় নেতৃত্ব। এছাড়াও, আমাদের প্রয়োজন বৈশ্বিক, জাতীয় এবং স্থানীয় পর্যায়ে নিরাপদ জীবনযাত্রা নিশ্চিত করা। এজন্য জাতিসংঘের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে আরও কার্যকর ও গতিশীল করা প্রয়োজন। সবার জন্য সমানভাবে, সময় মতো এবং সবার সাধ্যের মধ্যে ভ্যাকসিন নিশ্চিত করা আমাদের কর্তব্য। 

কোভিড-১৯ মোকাবিলায় সরকারের সাথে জাতিসংঘ, আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সংস্থা এবং সিভিল সোসাইটি এবং আমাদের সকলের একযোগে কাজ করতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা এমন একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চাই যেখানে জাতি, পরিবার, বন্ধু, প্রতিবেশী সবাই আমাদের নিয়ে গর্ববোধ করবেন। 

ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের কমান্ড্যান্ট লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান অনলাইনে এ সেমিনারের উদ্বোধন করেন।

ইষ্ট ওয়েষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন সেমিনারে সেশন চেয়ারের দায়িত্ব পালন করেন। আর সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ।

সেমিনারে সমন্বয়ক হিসেবে ছিলেন ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের সিনিয়র ডাইরেক্টিং স্টাফ মেজর জেনারেল আবুল হাসনাত মোহাম্মদ খায়রুল বাসার।

সেমিনারে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের সব অনুষদের সদস্য, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও বুদ্ধিজীবী, সামরিক ও বেসামরিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স ২০২০ ও আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্স ২০২০ এর কোর্স সদস্যরাও অনলাইন সেমিনারে অংশ নেন। 

সেমিনারে ‘কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ও বৈশ্বিক সুরক্ষা ও স্থিতিশীলতার ওপর তার প্রভাব’ বিষয়ের ওপর অস্ট্রেলিয়ার কার্টিন বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিটিক্যাল হিস্ট্রি এন্ড ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটির অধ্যাপক জোসেফ এম সিরাকুসা ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক শাহাব এনাম খান যৌথভাবে তাদের প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও ব্রাকের সাবেক ভাইস চেয়ারপারসন ড. মুসতাক রেজা চৌধুরী ‘কোভিড-১৯ ও স্বাস্থ্য সেবার ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক তার প্রবন্ধটি উপস্থাপন করেন এবং প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি সেলের সাবেক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ ‘কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে ও পরে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জনে শঙ্কা ও সম্ভাবনা: বাংলাদেশের নীতি’ শীর্ষক প্রবন্ধটি উপস্থাপন করেন।

সুত্রঃ সময় নিউজ


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
বাংলা » English